কবি মৃধা আলাউদ্দিনের জন্মদিন আজ

মৃধা আলাউদ্দিন। নব্বই দশকের নিভৃত কবিদের অন্যতম একজন। কবি, কথাশিল্পী, প্রবন্ধকার, সাহিত্য সমালোচক ও সাংবাদিক- একাধারে নানা পরিচয়ে পরিচিত তিনি। আজ এ গুণী মানুষের জন্মদিন।

মৃধা আলাউদ্দিন কবিতার শব্দ-সুতায় বুনে চলেছেন প্রেম ও দ্রোহ। সৃষ্টি করেছেন কবিতায় নতুন ধারা । অর্থাৎ তিনি কবিতাকে পড়াতে চেয়েছেন অতি আধুনিকতার মালা। তাঁর সচেতন শব্দবিন্যাস ও রূপকতার সৌন্দর্য পাঠক-হৃদয়কে কখনো ব্যথার বানে ভাসিয়ে নিয়ে যায়, আবার কখনো পরম আনন্দে উচ্ছ্বাসিত করে। তাঁর কবিতায় রয়েছে গ্রিক মিথোলজির চরিত্র, রয়েছে এলিটিরেশন, মোটাফোর, সিমিলি ও নানা ধরণের নান্দনিক ছন্দ প্রয়োগ। কবিতার পাশাপাশি তিনি নিয়মিত গল্প, ছড়া, প্রবন্ধ ও সাহিত্য সমালোচনা রচনা করে চলেছেন। দেশের শীর্ষ জাতীয় দৈনিকগুলোতে ছাপা হচ্ছে তাঁর সে সব লেখা।

ইতোমধ্যেই মৃধা আলাউদ্দিনের বেশকিছু বই প্রকাশ পেয়েছে। তার মধ্যে ‘সামনের শীতে মানুষ রৌদ্র হবে’ একটি দুর্বিনীত কবিতাগ্রন্থ। যেখানে ছত্রে ছত্রে কবিতাবোদ্ধার সনাতন বোধ আকস্মিকতার মখোমুখি হয়। এই আকস্মিকতা কতকটা বক্ষমান গ্রন্থের নামলিপির মতোই। মানুষের রৌদ্র হয়ে যাওয়া খুব প্রচলিত রূপান্তর নয়, তবে এই কাব্যযুক্তি সর্বাংশে অগ্রহণীয়ও নয়। বরং অন্যভাবে বলা চলে, এমন রূপান্তরমূলক কাব্যচিন্তা সর্বকালে কেবল কোনো অগ্রশিল্পীকেই মানায়।

মানুষের পাশাপাশি নদী বা প্রকৃতির অন্যান্য অনুষঙ্গও পরিবর্তিত হতে পারে। এই যে মূর্ত আর বিমূর্ত রূপান্তর, এ শুধু রোমান্টিক কবি কোলরিজের ক্রিয়েটিভ ইমাজিনেশনের তত্ত্ব নয়, বরং তৎপরবর্তী পরাবাস্তবতা বা জাদুবাস্তবতার হাত ধরে আরো বহুদূরে প্রাগ্রসর পদছাপ রেখেছে।

কবিতার কলাকৌশল— যথা ছন্দ, উপমা, উৎপেক্ষার পাশাপাশি পুরাণের ব্যবহার বা ভাষার অচেনাকরণের প্রক্রিয়াও বহুদূর পথ পেরিয়েছে। সতর্ক ও সচেতন কবিরা কেবল এ সম্পর্কে সজাগ। মৃধা আলাউদ্দিন তেমন এক সজাগ ও সচেতন কবি।

‘চুম্বনের এই প্রেম অথবা মহাযুদ্ধ’– এমন আপাত-আজগুবি শব্দবিবাহ তার কাব্যিক মিলনের ব্রহ্মাস্ত্র। ফলে তার এই গ্রন্থের পঙক্তিগুলো ভিন্নতর উচ্চারণে ভিন্ন দ্যোতনা দেয়। স্বপ্ন-বাস্তবের সীমারেখা ভেঙে দিয়েছেন তিনি সিদ্ধহস্তে। নিঃসন্দেহে বলা যায়, সমালোচনার জন্য সাহিত্যে কবি তার নিজস্ব জায়গা তৈরি করে নিয়েছেন।

কবি মৃধা আলাউদ্দিনের প্রথম কাব্যগ্রন্থ “রৌদ্দুরে যায় মন” (প্রকাশকাল : ২০০৫) ” প্রজাপতি হয়ে গ্যাছে কোনো কোনো মাছ” (কাব্যগ্রন্থ), “জঙধরা পিনালকোড” (গল্পগ্রন্থ), “চড়–ইয়ের চিড়িপ চিড়িপ শব্দ” (কিশোর কবিতা), “শুঁড়িখানার নরম দেহ” (দোঁহা কাব্যগ্রন্থ), “অল্পকিছু বিষ প্রয়োজন” (দোঁহা কাব্যগ্রন্থ), আল মাহমুদ ও অন্যান্য সন্দর্ভ প্রভৃতি।

সংসার জীবনে কবি মৃধা আলাউদ্দিন দুই ছেলে সন্তানের জনক। মা, স্ত্রী আর  দুই ছেলে নিয়েই সুখ-দুঃখের সংসার। বেশ আছেন তাদের নিয়ে।

সাধনার পথে নিভৃতচারী এ কবি পেয়েছেন নানা সম্মাননা। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো : অতীশ দীপঙ্কর স্বর্ণপদক, শীর্ষবিন্দু সাহিত্য পদক, বঙ্গীয় মুসলিম সাহিত্য সমিতি ক্রেস্ট ও স্বর্ণপদক।

কবি মৃধা আলাউদ্দিন বর্তমানে একটি জাতীয় দৈনিকে সাংবাদিকতা পেশায় কর্মরত আছেন। সম্পাদনা করেছেন কাব্যভাঁজ।

দৈনিক কাগজ কলম পরিবারের পক্ষ থেকে আমরা কবি মৃধা আলাউদ্দিনের জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাই। সেইসাথে তার সাহিত্য জীবনের সফলতা কামনা করি।

dailykagojkolom.com এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।