সরিষাবাড়ীতে চাঁদার দাবিতে ব্যবসায়ীদের ওপর যুবলীগ নেতার হামলা

প্রতিবাদে ধর্মঘট ও বিক্ষোভ

জামালপুরের সরিষাবাড়ীডে মাদক মামলায় জামিনে এসে বেপরোয়া হয়ে ওঠেছে এক যুবলীগ নেতা। উপজেলার ডোয়াইল ইউনিয়নের চাপারকোনা বাজারে অভিযুক্ত যুবলীগ নেতা মামনুর রশিদ মামুনের (৩০) গ্রেফতার দাবিতে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার (১২ ফেব্রুয়ারি) দিনব্যাপী স্থানীয় ব্যবসায়ীরা দোকানপাট বন্ধ রেখে ধর্মঘট পালন শেষে বিকেলে বিক্ষোভ করে।

চাপারকোনা বাজারের ব্যবসায়ীরা অভিযোগ করেন, উপজেলা যুবলীগের সদস্য ও চাপারকোনা গ্রামের আইনুদ্দিন মাস্টারের ছেলে মামনুর রশিদ মামুনের বিরুদ্ধে এলাকায় চাঁদাবাজি, মাদক ব্যবসা, স্থানীয় ব্যবসায়ীদের মারধরসহ বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে। তার বিরুদ্ধে কয়েকটি মাদক ও চাঁদাবাজি মামলা রয়েছে। সে জেল থেকে সম্প্রতি জামিনে এসে বেপরোয়া হয়ে উঠে।

ব্যবসায়ী হারুন অর রশিদ অভিযোগ করেন, গত বৃহষ্পতিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় মামুন ও তার সহযোগী শাহিন আলম নেশাগ্রস্থ অবস্থায় চাপারকোনা বাজারে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান কাদের ডিজিটাল স্টুডিও এণ্ড স্টোরে গিয়ে চাঁদা দাবি করে। তিনি চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে মামুন ও তার লোকজন তার ওপর হামলা চালায়।

এসময় স্থানীয় ব্যবসায়ীরা এগিয়ে গেলে তাদেরও মারধর করা হয়। এতে হারুন অর রশিদ, সুজন ঠাকুর, শাহজাহান আলী, আব্দুল কদ্দুসসহ বেশ কয়েকজন গুরুতর আহত হন। এ ঘটনায় ওইদিন রাতেই থানায় অভিযোগ দেওয়া হয়।

স্থানীয় ইউপি সদস্য নুরুল ইসলাম জানান, মামুনের গ্রেফতার দাবিতে শুক্রবার চাপারকোনা বাজারের ব্যবসায়ীরা দোকান বন্ধ রেখে সারাদিন ধর্মঘট ও বিকেলে বিক্ষোভ পালন করেছে।

মামুনকে গ্রেফতার করা না হলে কঠোর কর্মসূচি পালন করা হবে বলেও তিনি আরো জানান।

এ ব্যাপারে ডোয়াইল ইউনিয়ন বিট পুলিশের ইনচার্জ (এএসআই) আনসার আলী বলেন, মামুনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। এব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

dailykagojkolom.com এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।