সরিষাবাড়ীতে ৪২ লাখ টাকা নিয়ে হিসাবরক্ষণ অফিসের পিয়ন উধাও

জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলা হিসাবরক্ষণ অফিসের পিয়ন সাকিবুল হাসানের বিরুদ্ধে ৪২ লাখ টাকা নিয়ে পালানোর অভিযোগ উঠেছে। বৃহষ্পতিবার সকালে ঘটনা জানাজানি হলে উপজেলা পরিষদে তোলপাড় সুষ্টি হয়। এ ঘটনায় সরিষাবাড়ী থানায় পৃথক দুটি জিডি করা হয়েছে।

সূত্র জানায়, উপজেলা হিসাবরক্ষণ অফিসের পিয়ন জয়নাল আবেদীন অসুস্থ থাকায় তদস্থলে তার ছেলে সাকিবুল হাসানকে দাপ্তরিক কাজের খণ্ডকালীন অনুমতি দেওয়া হয়। তিনবছর ধরে সে অফিসের কাজ করার সুবাদে সকল গোপনীয়তা জানার পাশাপাশি অফিসের বিশ্বস্থ হয়ে উঠে সাকিবুল হাসান। এ সুযোগে উপজেলা হিসাবরক্ষণ অফিসার স্নিগ্ধ রায়হান, অডিটর রফিকুল ইসলামসহ তিনজন কর্মকর্তার স্বাক্ষর সে জাল করে। বিভিন্ন সময় ভুয়া বিল-ভাউচার দেখিয়ে সোনালী ব্যাংক উপজেলা কমপ্লেক্স শাখায় হিসাবরক্ষণ অফিসের নামে ‘জামানত ফান্ডের’ ৪১ লাখ ৯৪ হাজার ৫১২ টাকা সে উত্তোলন করে।

উপজেলা হিসাবরক্ষণ অফিসার স্নিগ্ধ রায়হান জানান, আমি গত ২০ ডিসেম্বর সরিষাবাড়ীতে যোগদান করি। এরপর ফাইলপত্র চেক করতে গিয়ে ১০ লক্ষাধিক টাকার একটি ভুয়া বিল-ভাউচার আমার নজরে পড়ে। পরে আরো ৪টি ভুয়া বিল-ভাউচার দেখতে পাই। এরপর খোঁজ নিয়ে দেখতে পাই যে, ব্যাংক থেকে টাকা উত্তোলন করতে চেকে যে স্বাক্ষর ব্যবহার করা হয়েছে সেটা আমার না, জাল স্বাক্ষর।

তিনি আরো জানান, বিষয়টি দাপ্তরিকভারে অনুসন্ধান শুরু করলে পিয়ন সাকিবুল হাসান অফিস ছেড়ে হঠাৎ গা-ঢাকা দেয়। বিষয়টি আরো পরিষ্কার হয়ে যায়। এ ব্যাপারে সরিষাবাড়ী থানায় গত ১৭ ও ২৩ ফেব্রুয়ারি পৃথক দুটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়। যার নম্বর যথাক্রমে ৬৫১ ও ৮৯৪।

এব্যাপারে ময়মনসিংহ বিভাগীয় হিসাব মহানিয়ন্ত্রক শাহজাহান সরকার জানান, বিষয়টি নিয়ে বিভাগীয় তদন্ত চলছে। সংশ্লিষ্ট পিয়নের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

dailykagojkolom.com এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।