কামরাবাদ ইউনিয়নে মনোনয়ন দৌঁড়ে নজর কেড়েছেন যুবনেতা আশরাফ

জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলার আসন্ন ৭নং কামরাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন দৌঁড়ে এলাকাবাসীর নজর কেড়েছেন এ কে এম আশরাফুল ইসলাম। সকাল থেকে মধ্যরাত অবধি গণমানুষের যেকোনো প্রয়োজনে ছুটে গিয়ে মানুষের মনে স্থান করে নিয়েছেন ইতোমধ্যেই। দলের গুরুত্বপূর্ণ পদে ও ক্ষমতার খুব কাছাকাছি থেকেও লোভ, অহঙ্কার ও দুর্নীতি তাঁকে বিন্দুমাত্র স্পর্শ করেনি বলে মনে করেন ইউনিয়নবাসী। একনামে সবার কাছে তিনি ‘আশরাফ ভাই’ হিসেবে পরিচিত হয়ে উঠেছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, এ কে এম আশরাফুল ইসলাম সরিষাবাড়ী উপজেলা যুবলীগের সভাপতি। পাশাপাশি তিনি জাগ্রত ৭১’র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, সরিষাবাড়ী শেখ রাসেল স্মৃতি সংসদের যুগ্ম আহ্বায়ক, দর্পন থিয়েটারের সাধারণ সম্পাদক ও সরিষাবাড়ী সাংস্কৃতিক সংসদের সিনিয়র সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন।

ইউনিয়নবাসী জানান, আশরাফুল ইসলাম ক্ষমতার খুব কাছাকাছি ও দলীয় গুরুত্বপূর্ণ পদে থেকেও নির্মোহ, নিরঙ্কারী, পরোপকারী ও ক্লিন ইমেজের নেতা হিসেবে মানুষের মনে ঠাঁই করে নিয়েছেন। ব্যক্তিগত স্বার্থ আদায়ে দলীয় পরিচয় ব্যবহার না করাটা সমাজে বিরল- যা তাঁর মধ্যে লক্ষ করা যায়। এমন ব্যক্তি ইউপি চেয়ারম্যানের আসনে বসলে সমাজের মানুষ প্রকৃত একজন সেবক পাবে বলে এলাকাবাসীর ধারণা।

স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা গেছে, আশরাফুল ইসলাম ইউনিয়নসহ উপজেলার যেকোনো মানুষের যেকোনো সমস্যায় ছুটে যান। ইতোমধ্যেই বিভিন্ন স্থানে সামাজিক বিচার-সালিশে ন্যায় ও সততার মাধ্যমে ছোটখাটো সমস্যার সমাধান করেও মানুষের বিশেষ নজরে এসেছেন। এলাকায় ন্যায়ভিত্তিক এমন সামাজিক বিচার প্রতিষ্ঠিত হলে মানুষের হয়রানি ও দেশের আদালতগুলোতে মামলার চাপ কমে আসবে বলে সচেতনমহল মনে করেন।

আশরাফুল ইসলামের নেতৃত্বে এলাকায় গরুচোর প্রতিরোধে জাগ্রত ৭১’র ব্যানারে পালাক্রমে বিভিন্ন স্থানে রাতজেগে পাহারার ব্যবস্থা করেন। বাল্যবিয়ে ও যৌতুক প্রতিরোধ, ভিক্ষাবৃত্তি নিরোধ, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ প্রতিরোধ আন্দোলনে যুবকদের মধ্যে তাঁর  নেতৃত্ব যুবসমাজে সাড়া ফেলে। মঞ্চনাটক, পথনাটক, বিজ্ঞাপনসহ সাংস্কৃতিক মাধ্যমে সামাজিক সচেতনতা সৃষ্টিতে তাঁর সক্রিয় অংশগ্রহণ।

ইউপি নির্বাচনকে সামনে রেখে এলাকায় মানুষের মধ্যে তাঁকে নিয়ে আশার সঞ্চার হয়েছে। নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন পেতে তিনি বিভিন্ন স্থানে গণসংযোগ করছেন। এসময় নারী-পুরুষ সকলেই তাঁকে দোয়া ও আশির্বাদ করে যাচ্ছেন।

এব্যাপারে  কে এম আশরাফুল ইসলাম বলেন, জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা ও সফল রাষ্ট্রনায়ক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশন-মিশন বাস্তবায়নে কাজ করে যাওয়াই আমার ব্রত। সেই লক্ষ্যে মানুষের কাছাকাছি থাকার চেষ্টা করছি। আমি কৃষক পরিবারের সন্তান এবং নিজেও একজন কৃষক, সেই হিসেবে বুঝি যে, সমাজের তৃণমুল মানুষের হৃদয় জয় করা ছাড়া কেউ সত্যিকার নেতা হতে পারে না।

আগামী দিনে দল তাঁকে যোগ্য মনে করে নৌকা প্রতীক উপহার দিলে এবং ইউনিয়নবাসী সহযোগিতা করলে জনপ্রতিনিধির আসনে বসে জনসেবার কাজ আরো বেগবান করতে চান বলেও তিনি জানান।

dailykagojkolom.com এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।