নুরুল ইসলাম আছিব-এর তিনটি কবিতা

সফলতা

সাফল্য ও সফলতা অর্জন; নিজের পায়ে নিজে দাঁড়ানো, নিজেকে সফল ব্যক্তি হিসেবে প্রতিষ্ঠা করা—কারো জন্য সহজ, আবার কারো কারো জন্য দুর্লভ। আশ্বিনের অমাবস্যা।

যাদের বৃত্তবান পরিবারে জন্ম হয়েছিল—অন্যদের সাহায্য-সহযোগিতা পেয়েছিল। নিজেদের ইচ্ছাশক্তি ও আল্লাহ প্রদত্ত মেধা সঠিকভাবে কাজে লাগিয়েছিল। তারা খুুব সহজে সফলতা অর্জন করেছে। যেমন গোলাপের বাগানে সবুজ গোলাপের প্রাচুর্য…

যাদের নিম্নবিত্ত বা মধ্যবিত্ত পরিবারে জন্ম হয়েছিল—কারো সাহায্য-সহযোগিতা পায়নি। নিজেদের ইচ্ছাশক্তি ও আল্লাহ প্রদত্ত মেধা স্বল্প পরিসরে কাজে লাগিয়েছে—তারাও সফলতা পেয়েছে। হয়তো আহামরি, বড়ো কিছু না, সাধারণ সফল ব্যক্তিত্বে পরিণত হয়েছে তারা…

যারা সফলতা অর্জন করেছে প্রতিটি মানুষই পরিশ্রম করেছে। কখনো তারা আট ঘণ্টা কাজ করেছে। আবার কখনো ১২ ঘণ্টা কাজ করেছে। এভাবে একটু একটু করে সফলতার দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে যেতে হয়। মানুষ যায়। এভাবেই মানুষের জীবনে আসে সাতরঙ ষড়ৈশ্বর্য।

পৃথিবীতে মানুষ যেমন সত্য—মানুষের সফলতাও তেমন সত্য। প্রতিটি সফলতার পেছনে রয়েছে কোনো না কোনো সহৃদয়বান মানুষের সাহায্য-সহযোগিতা। ভালোবাসা। ভালোবাসা আর ভালোবাসা…

 

প্রেম

সবার কাছেই প্রেম আসে অথবা সবাই জীবনে একবার হলেও প্রেমে পড়ে।
ছেলেমেয়ে সে যেই হোক একে অপরের প্রেমে নদীর ঢেউয়ের মতো মুগ্ধ হয়।

প্রেম কারো কারো জীবনে হয় দীর্ঘ আবার কেউ হারিয়ে ফেলে অল্প সময়েই…

কেউ জীবনে সফলতা পায়, কারো জীবন হয় শুষ্ক মরুভূমি।
খুব অল্পজনেরই হয় অমর প্রেম।

প্রেমে থাকে বাবলা বনের কাঁটা— যন্ত্রণায় দগ্ধ হয় অনেকেই।
এই যন্ত্রণা ও কাঁটা যারা সহ্য করতে পারে, তারা দূর থেকেও পায় ভালোবাসার মৌ মৌ ঘ্রাণ। দক্ষিণের বাউলা বাতাস…

২.
এক তরফা প্রেম-ভালোবাসায় কোনো সুখ নেই। স্মৃতি নেই—যন্ত্রণার সাগর ছাড়া সেখানে আর কিছুই খুঁজে পাওয়া যায় না।

৩.
না বলা থেকে যায় পৃথিবীর অনেক ভালোবাসা।
বিয়ে হয়ে যায় মেয়েটার। বিয়ে হয়ে যায় ছেলেটার—
তারা কোনো কালেও বলতে পারেনি তাদের ভালোবাসার কথা।
ব্যথা ও বেদনার কথা…

সঠিক, সত্য ও সুন্দর প্রেম ঝামেলার মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকে না।
তার কোনো সংজ্ঞাও নেই। সাগর-নদীর মতো আমাদের সেই প্রেম
বেঁচে থাকবে, বয়ে যাবে বহমান স্রোতধারার মতো
চারদিকে, এই পৃথিবীতে। পৃথিবী থেকে পৃথিবীতে—আকাশের ওপারে, আকাশে…

 

স্বপ্ন

স্বপ্ন কারো জন্য আশা, কারো জন্য হতাশা—
কারো জন্য কাচের দেয়ালে বন্দি দুর্লভ কোনো টোনা ফিস
কুচি কুচি বরফের কতা— ঘূর্ণমান দূরের কোনো নক্ষত্র
যা দেখা যায়, ছোঁয়া যায় না।

স্বপ্ন কারো জন্য এক ফালি রোদের ঝিলমিল
জোয়ারের সঘন ঢেউ, মেঘবালিকা-
হঠাৎ করে একটুখানি স্বপ্ন স্বল্প সময়ের জন্য
মানুষের কাছে আসে আবার চলে যায়।

স্বপ্ন আবার কখনো কখনো এমন হয়—
যদি তার একটা স্বপ্ন পূর্ণতা পায়;
তাহলে সে আবার আরেকটা স্বপ্ন দেখে
ছুঁয়ে দেখে পৃথিবী ও রৌদ্দুর…

স্বপ্ন ততোদিন থাকবে যতোদিন এই পৃথিবীতে মানুষ থাকবে।
তবে এটা সত্য— কারো স্বপ্ন পূর্ণতা পাবে
আবার কারো স্বপ্ন শুধু স্বপ্নই থেকে যাবে।

আমাদের স্বপ্নগুলো এমন হওয়া উচিত
আমরা যে যেখানে আছি, যে পরিস্থিতিতে আছি
যেখানে যে অবস্থায় আছি
আমাদের স্বপ্নগলো ঠিক সেভাবে দেখা উচিত।

তাহলে স্বপ্নগুলো আর হতাশায় ডুবে যাবে না।
নিমজ্জিত হবে না ধূলি-ধূসর কোনো তীব্র কুয়াশায়…

dailykagojkolom.com এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।