হিন্দু শিক্ষকের বিরুদ্ধে ইসলাম ও মহানবীকে নিয়ে কটুক্তির অভিযোগ

উলামা ও তৌহিদি জনতার প্রতিবাদ সভা

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে কৃষ্ণচন্দ্র সূত্রধর (৩৫) নামে এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে আল্লাহ্, মহানবী হযরত মোহাম্মদ (সা.) ও ইসলাম ধর্ম নিয়ে নানা কটুক্তির অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শুক্রবার (১০ জুন) সন্ধ্যায় সরিষাবাড়ী প্রেসক্লাবে ওলামা ও তৌহিদী জনতার ব্যানারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলন ও প্রতিবাদ সভায় এ অভিযোগ করা হয়।

অভিযুক্ত কৃষ্ণচন্দ্র সূত্রধর শাহীন স্কুল সরিষাবাড়ী শাখার গণিত শিক্ষক এবং উপজেলার ডোয়াইল ইউনিয়নের ভবানীপুর গ্রামের গণেশচন্দ্র সূত্রধরের ছেলে।

প্রতিবাদ সভায় বক্তারা অভিযোগ করেন, কৃষ্ণচন্দ্র সূত্রধর উগ্রবাদী ইসকনের সদস্য। তিনি প্রাইভেট পড়ানোর সুবাদে বিভিন্ন সময় কোমলমতি শিক্ষার্থীদের মাঝে ইসলাম বিদ্বেষ ছড়াচ্ছেন। সম্প্রতি কয়েকজন শিক্ষার্থীর কাছে তিনি আল্লাহ্, মহানবী হযরত মোহাম্মদ (সা.), জান্নাত-জাহান্নামসহ ইসলাম সম্পর্কে নানা আপত্তিকর মন্তব্য করেন। এতে এলাকায় ইসলাম বিদ্বেষ সৃষ্টি ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট হওয়ার আশঙ্কায় বক্তারা অভিযুক্ত শিক্ষককে দ্রুত শাস্তির আওতায় আনার দাবি জানান।

এসময় বক্তব্য রাখেন উপজেলা ইমাম সমিতির সভাপতি মাও. নাজমুল হুদা, মুফতি হাফেজ মো. কামরুজ্জামান, শুয়াকৈর দাখিল মাদ্রাসার সুপার মাও. মো. শহিদুল্লাহ, ঈমান-মোয়াজ্জেম কল্যান সমিতির সভাপতি মাও. মো. জুনায়েদ, হাফেজ মাও. আবু বকর সিদ্দিক, মাও. আইয়ুব আলী আনছারি, শিক্ষার্থী শিহাব উদ্দিন, মো. ফাহাদ প্রমুখ।

এদিকে অভিযোগ প্রসঙ্গে শিক্ষক কৃষ্ণচন্দ্র সূত্রধর মুঠোফোনে বলেন, আমি ২০১৩-১৪ সাল থেকে ইসকনকে সমর্থন করি, ইসকনের আদর্শ মেনে আমিষ বর্জন করেছি। ২০১৫ সাল থেকে শিক্ষকতা ও প্রাইভেট পড়িয়ে আসছি। ইসলাম সম্পর্কে আমি কেন বলবো, নিজেই তো ইসলাম সম্পর্কে কিছু জানি না!

এব্যাপারে সরিষাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মীর রকিবুল হক বলেন, ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে ধর্ম সম্পর্কে সমালোচনার অভিযোগ উঠায় শাহীন স্কুল থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে শুনেছি। স্কুল কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে থানায় একটি জিডি করেছে।

dailykagojkolom.com এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।